সূরা আদিয়াত

وَالْعَادِيَاتِ ضَبْحًا ‎﴿١﴾‏ فَالْمُورِيَاتِ قَدْحًا ‎﴿٢﴾‏ فَالْمُغِيرَاتِ صُبْحًا ‎﴿٣﴾‏ فَأَثَرْنَ بِهِ نَقْعًا ‎﴿٤﴾‏ فَوَسَطْنَ بِهِ جَمْعًا ‎﴿٥﴾‏ إِنَّ الْإِنسَانَ لِرَبِّهِ لَكَنُودٌ ‎﴿٦﴾‏ وَإِنَّهُ عَلَىٰ ذَٰلِكَ لَشَهِيدٌ ‎﴿٧﴾‏ وَإِنَّهُ لِحُبِّ الْخَيْرِ لَشَدِيدٌ ‎﴿٨﴾‏ أَفَلَا يَعْلَمُ إِذَا بُعْثِرَ مَا فِي الْقُبُورِ ‎﴿٩﴾‏ وَحُصِّلَ مَا فِي الصُّدُورِ ‎﴿١٠﴾‏ إِنَّ رَبَّهُم بِهِمْ يَوْمَئِذٍ لَّخَبِيرٌ ‎﴿١١﴾‏ (আমি শপথ করে বলছি) সেইসব (ঘোড়াদের) যারা হাঁপাতে হাঁপাতে ছুটে যায়, তারপর পাথুরে ভূখণ্ডে (তাদের খুর দিয়ে) আঘাত …

Read More »

দশ পদমৰ্যাদা বৃদ্ধি হওয়া

عن أنس بن مالك رضي الله عنه قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم: من صلى علي صلاة واحدة صلى الله عليه عشر صلوات وحطت عنه عشر خطيئات ورفعت له عشر درجات (سنن النسائي، الرقم: 1297)[1] হযরত আনাস ইবনে মালিক (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) বৰ্ণণা করেন যে, রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম) …

Read More »

আল্লাহ তাআলার হযরত সা’আদ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) এর দুয়ার জবাব দেওয়া ‎

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) হযরত সা’দ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)-এর জন্য দু’আ করলেন: “হে আল্লাহ! সা’দ যখন তোমার কাছে দোয়া করে তখন তার দোয়ার জবাব দাও!” (সুনানে তিরমিযী #৩৭৫১) রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) এর বিশেষ দোয়া হযরত আয়েশা বিনতে সা’দ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহা), হযরত সা’দ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) এর কন্যা, তাঁর পিতা হযরত সা’দ …

Read More »

পুরুষের নামাজ – সপ্তম খন্ড

রুকু এবং কওমা (১) সূরা ফাতিহা এবং কিরাত পড়া শেষ হলে পুনরায় তাকবীর পড়া এবং হাত না উঠিয়ে রুকুতে যাওয়া।[1] দ্রষ্টব্য: তাকবীরাত-ই-ইনতিকালিয়্যাহ (এক অবস্থা থেকে অন্য অবস্থায় যাওয়ার সময় যে তাকবীর পাঠ করা হয়) পরবর্তী অবস্থায় যাওয়া শুরু করার সাথে সাথেই শুরু করা উচিত এবং যখন কেউ সেই অবস্থায় পৌঁছায় …

Read More »

জুমার দিনে দুরূদ পাঠ করার মহান ফজিলত

عن أوس بن أوس رضي الله عنه قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم: إن من أفضل أيامكم يوم الجمعة فأكثروا علي من الصلاة فيه فإن صلاتكم معروضة علي (سنن أبي داود، الرقم: 1531)[1] হযরত আওস ইবনে আওস (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) থেকে বৰ্ণিত, রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম) ফরমান, “সবচাইতে ফযিলতময় …

Read More »

হযরত সাদ বিন আবি ওয়াক্কাস (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) এর জন্য জান্নাতের সুসংবাদ

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) উল্লেখ করেছেন: “সাদ জান্নাতে থাকবেন (অর্থাৎ তিনি সেই লোকদের অন্তর্ভুক্ত যারা দুনিয়াতে জান্নাতের সুসংবাদ পেয়েছেন) ।” (জামি তিরমিযী #৩৭৪৭) ইসলাম গ্রহণের পূর্বে হযরত সাদ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)-এর স্বপ্ন হযরত সাদ (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) বর্ণনা করেন: ইসলাম গ্রহণের পূর্বে আমি একটি স্বপ্ন দেখি যাতে আমি দেখলাম যে আমি সম্পূর্ণ …

Read More »

আত্মীয়স্বজনদের মধ্য থেকে রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর নিকট সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তি

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম) হযরত ফাতিমা (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহা)-কে হযরত আলী (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)-এর সাথে বিয়ে দেওয়ার সময় বলেছিলেন, “আমার আত্মীয়দের মধ্যে থেকে আমার সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তির সাথে আমি তোমাকে বিবাহ দিয়েছি।” (আল-মুউজামুল কাবীর #৩৬৪) রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর হযরত আলী (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)-কে কবর সমতল করতে, মূর্তি ধ্বংস করতে এবং ছবি মুছে …

Read More »

একশো দুরূদ পাঠ করার জন্য বিশেষ পুরস্কার

عن أبي هريرة رضي الله عنه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال: من صلى علي عشرا صلى الله عليه مئة ومن صلى علي مئة صلی الله عليه ألفا ومن زاد صبابة وشوقا کنت له شفيعا وشهيدا يوم القيامة (أخرجه أبو موسى المديني)[1] হযরত আবু হুরাইরা (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) বৰ্ণনা করেন …

Read More »

হযরত আলী (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)-এর প্রতি ভালোবাসা ঈমানের লক্ষণ

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম) হযরত আলী (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) কে বললেন, لا يحبك إلا مؤمن، ولا يبغضك إلا منافق )أي: حب سيدنا علي رضي الله عنه من علامات الإيمان، بشرط الإيمان بجميع أمور الدين الأخرى). (جامع الترمذي، الرقم: ٣٧٣٦) “মুমিন ব্যতীত কেউ তোমাকে ভালবাসবে না এবং মুনাফিক ছাড়া কেউ তোমাকে ঘৃণা …

Read More »

সত্তরজন ফেরেশতা হাজার দিবসের জন্য সওয়াব লিপিবদ্ধ করেন

عن ابن عباس رضي الله عنهما قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم: من قال: جزى الله عنا محمدا بما هو أهله أتعب سبعين كاتبا ألف صباح (الطبراني في الأوسط، الرقم: 235)[1] হযরত ইবনে আব্বাস (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহুমা) বর্ণনা করেন যে  হুজুর (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এরশাদ করেন যে, যে ব্যক্তি  …

Read More »