হযরত যুবায়ের (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) এর জন্য জান্নাতের সুসংবাদ

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) উল্লেখ করেছেন:‎

الزبير في الجنة (هو ممن بشّر بالجنة في الدنيا) (جامع الترمذي، الرقم: ٣٧٤٧)

“যুবায়ের জান্নাতে থাকবে (অর্থাৎ সে দুনিয়াতে জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত লোকদের অন্তর্ভুক্ত)”। (জামি’ তিরমিযী #৩৭৪৭)

উহুদ যুদ্ধের পর রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর ডাকে সাড়া দেওয়া

একবার হযরত আয়েশা (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহা) তাঁর ভাগ্নে উরওয়াহ (রহিমাহুল্লাহ)-এর সাথে কথা বললেন এবং বললেন,

“হে আমার ভাগ্নে! আপনার উভয় পিতা (আপনার পিতা এবং আপনার মাতামহ), হযরত যুবাইর (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) এবং হযরত আবু বকর (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) সাহাবায়ে কেরামের মধ্যে ছিলেন যাদের সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা উহুদের যুদ্ধের ব্যাপারে নিম্নলিখিত আয়াতে বলেছেন:

ٱلَّذِينَ ٱسْتَجَابُوا لِلَّـهِ وَٱلرَّسُولِ مِن بَعْدِ مَآ أَصَابَهُمُ ٱلْقَرْحُ لِلَّذِينَ أَحْسَنُوا مِنْهُمْ وَٱتَقٌعٌ

যারা আহত হওয়ার পরও আল্লাহ ও রসুলের ডাকে সাড়া দিয়েছিল, তাদের মধ্যে যারা সৎকাজ করে এবং অন্যায় থেকে বিরত থাকে তাদের জন্য রয়েছে মহা পুরস্কার।

হযরত আয়েশা (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহা) আরও উল্লেখ করেছেন, “উহুদের দিনে যখন রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর উপর অসুবিধার সৃষ্টি হয়েছিল (কাফেররা মুসলমানদের উপর আক্রমণ ও রসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লামকে আহত করার কারণে) এবং কাফেররা চলে গেল, রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) ভয় পেলেন যে তারা ফিরে আসতে পারে (এবং আবার মুসলমানদের আক্রমণ করার চেষ্টা করতে পারে)। তাই রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) ঘোষণা করলেন, “কে তাদের (অর্থাৎ কাফেরদের) পিছনে যাবে?

এ ঘোষণা শুনে রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম) এর সত্তরজন সাহাবা (রাদ্বীয়াল্লাহু ‘আনহুম) তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে কাফেরদের তাড়া করলেন। (কাফেররা প্রত্যাবর্তনের ইচ্ছা করছিল, কিন্তু সাহাবায়ে কেরাম (রাদ্বীয়াল্লাহু ‘আনহুম) তাদের পশ্চাদ্ধাবনে এসেছেন শুনে তারা ফিরে যাওয়ার চিন্তা ত্যাগ করে পালিয়ে গেল)। সত্তরজন সাহাবায়ে কেরামের মধ্যে ছিলেন হযরত আবু বকর (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু) ও হযরত যুবায়ের (রাদ্বীয়াল্লাহু আনহু)।(সহীহ বুখারী #৪০৭৭, ফাতহুল বারী ৭/৪৩২)

Check Also

রসুলুল্লাহ (সল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর হযরত সা’দ (রাদ্বীয়াল্লাহু ‘আনহু) এর জন্য দোয়া করা

قيل لسيدنا سعد بن أبي وقاص رضي الله عنه: متى أصبت الدعوة (أي استجابة دعائك)؟ …